Sunday, September 20, 2015

সেক্স ভিডিও (Sex Video)

 সেক্স ভিডিও (Sex Video)

Sex Video সমাজের মূল্য বোধকে ধ্বংশ করেপ্রচলিত সমাজ ব্যবস্থাকে ধ্বংশ করে অশান্তি সৃষ্টি করার ডিজিটাল Virus বলে অভিহিত করা যায় Sex Video কে প্রযুক্তিকে ব্যবহার করে সেক্স ভিডিও(Sex Video) শেয়ার বৃদ্ধি পাচ্ছে আরসেক্সুয়াল ব্ল্যাকমেলিংয়নতুন সমস্যা ভারতের ন্যাশনাল ক্রাইম রেকর্ডস ব্যুরোর দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, গত বছর গোটা দেশে ধরনের অপরাধে ৭৩৭ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ ধৃতদের মধ্যে ১৮-৩০ বছরের তরুণ তরুণীদের সংখ্যাই সব থেকে বেশি
 সাড়ে চারশো জনেরও বেশি যুবক ইন্টারনেটে অশালীন ছবি, ইচ্ছার বিরুদ্ধে যৌন ক্রিয়ার সেক্স ভিডিও (Sex Video)ধারণ করে এবং তা বিভিন্ন ওয়েবসাইটে দিয়ে গ্রেপ্তার হয়েছেন৷ মনোস্তাত্ত্বিকদের আশঙ্কা, বেশির ভাগ ক্ষেত্রে অভিযোগ সামনে না আসার জন্যই এই প্রবণতা আরও বাড়ছে। সাইবার ক্রাইম বিশেষজ্ঞরা আবার বলছেন, অভিযোগ করলেও তা লঘু ভাবে দেখার প্রশাসনিক শিথিলতাও এই সমস্যাকে আরও বাড়িয়ে তুলছে
 বিভিন্ন ওয়েবসাইট, টরেন্ট লিঙ্ক, ওয়েব সেক্সটিং সাইট (ওয়েবক্যামের মাধ্যমে সেক্স ভিডিও(Sex Video) শেয়ার করার সাইট)- এখন সবচেয়ে জনপ্রিয় হলো হোমমেড পর্ন। অর্থাত্কোনও অভিনয় ছাড়াই, গোপন ক্যামেরা অথবা পারস্পরিক বোঝা পড়ার মাধ্যমে যৌনক্রিয়ার দৃশ্য বা ছবি তুলে রাখা
 সাইবার ক্রাইম বিশেষজ্ঞ বিভাস চট্টোপাধ্যায় বলছেন, ইন্টারনেটে যত তথ্য আছে, তার মধ্যে ৬০-৭০ শতাংশই হলো পর্নোগ্রাফি অথবা সেমি-পর্নোগ্রাফি সেক্স ভিডিও(Sex Video) প্রযুক্তিকে ব্যবহার করে ধরনের সেক্স-চক্র চালানো বা এমন ব্ল্যাকমেলিং যে শহর, রাজ্যের অলি গলিতে ইন্টারনেটের হাত ধরে ক্রমে ছড়িয়ে পড়ছে, তা মেনে নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করছেন বিশেষজ্ঞরা৷ এই মতামতের সঙ্গে অনেকাংশেই সহমত পুলিশের বড় কর্তারাও।
সেক্স ভিডিও (Sex Video) মূল্যবোধ নষ্ট করে সমাজে ক্ষতের সৃষ্টি করছে ।
 তথ্য সূত্র - ওয়েব সাইড

Sunday, September 20, 2015

সেক্স ভিডিও (Sex Video)

 সেক্স ভিডিও (Sex Video)

Sex Video সমাজের মূল্য বোধকে ধ্বংশ করেপ্রচলিত সমাজ ব্যবস্থাকে ধ্বংশ করে অশান্তি সৃষ্টি করার ডিজিটাল Virus বলে অভিহিত করা যায় Sex Video কে প্রযুক্তিকে ব্যবহার করে সেক্স ভিডিও(Sex Video) শেয়ার বৃদ্ধি পাচ্ছে আরসেক্সুয়াল ব্ল্যাকমেলিংয়নতুন সমস্যা ভারতের ন্যাশনাল ক্রাইম রেকর্ডস ব্যুরোর দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, গত বছর গোটা দেশে ধরনের অপরাধে ৭৩৭ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ ধৃতদের মধ্যে ১৮-৩০ বছরের তরুণ তরুণীদের সংখ্যাই সব থেকে বেশি
 সাড়ে চারশো জনেরও বেশি যুবক ইন্টারনেটে অশালীন ছবি, ইচ্ছার বিরুদ্ধে যৌন ক্রিয়ার সেক্স ভিডিও (Sex Video)ধারণ করে এবং তা বিভিন্ন ওয়েবসাইটে দিয়ে গ্রেপ্তার হয়েছেন৷ মনোস্তাত্ত্বিকদের আশঙ্কা, বেশির ভাগ ক্ষেত্রে অভিযোগ সামনে না আসার জন্যই এই প্রবণতা আরও বাড়ছে। সাইবার ক্রাইম বিশেষজ্ঞরা আবার বলছেন, অভিযোগ করলেও তা লঘু ভাবে দেখার প্রশাসনিক শিথিলতাও এই সমস্যাকে আরও বাড়িয়ে তুলছে
 বিভিন্ন ওয়েবসাইট, টরেন্ট লিঙ্ক, ওয়েব সেক্সটিং সাইট (ওয়েবক্যামের মাধ্যমে সেক্স ভিডিও(Sex Video) শেয়ার করার সাইট)- এখন সবচেয়ে জনপ্রিয় হলো হোমমেড পর্ন। অর্থাত্কোনও অভিনয় ছাড়াই, গোপন ক্যামেরা অথবা পারস্পরিক বোঝা পড়ার মাধ্যমে যৌনক্রিয়ার দৃশ্য বা ছবি তুলে রাখা
 সাইবার ক্রাইম বিশেষজ্ঞ বিভাস চট্টোপাধ্যায় বলছেন, ইন্টারনেটে যত তথ্য আছে, তার মধ্যে ৬০-৭০ শতাংশই হলো পর্নোগ্রাফি অথবা সেমি-পর্নোগ্রাফি সেক্স ভিডিও(Sex Video) প্রযুক্তিকে ব্যবহার করে ধরনের সেক্স-চক্র চালানো বা এমন ব্ল্যাকমেলিং যে শহর, রাজ্যের অলি গলিতে ইন্টারনেটের হাত ধরে ক্রমে ছড়িয়ে পড়ছে, তা মেনে নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করছেন বিশেষজ্ঞরা৷ এই মতামতের সঙ্গে অনেকাংশেই সহমত পুলিশের বড় কর্তারাও।
সেক্স ভিডিও (Sex Video) মূল্যবোধ নষ্ট করে সমাজে ক্ষতের সৃষ্টি করছে ।
 তথ্য সূত্র - ওয়েব সাইড