Sunday, October 25, 2015

India, Bangladesh border fence in his hand!

 India, Bangladesh border fence in his hand!

India-Bangladesh border.
Cow climbing Bangladesh border.
Indian border fence with his hand.
Once the fence was not in his hand.
People living in border traffic was fair.
It could invite other social events.
Was going to come.
Affection between the two men.
Both men were solemnizing the marriage of the girl child.
The ties of kinship.
But the heart of the bonds of kinship ties were severed.
India due to the spines of his disability.
The spines of the people of the two countries Blockage India border has cut off the ties.
Heart ties and kinship ties were brutally stabbed.
Indian hand to his shot come out around Bangladesh's target.
The little girl shot dead hanging spines Felani insignificance of humanity witnessed.
If humanity is to continue to cry.
Still standing are given the pitiless hand of Indian
Felani innocent little girl's killer to justice is not, in the name of Mother India!
He is waiting for the hand of his brutal murder border.
India is said to be the mother of his hand to his cruel guards failed to protect the innocent Bangladeshi children.

ভারত বাংলাদেশের সীমান্তে কাঁটা তাঁরের বেড়া !

বাংলাদেশ  ভারত সীমান্ত।
বাংলাদেশ সীমান্তে গরু চড়ছে।
ভারতীয় সীমান্তে কাঁটা তাঁরের বেড়া।
একসময় এই ভারতীয় কাঁটা তাঁরের বেড়া ছিল না।
অবাদ চলাচল ছিল সীমান্তের বসবাসকারী জনগণের।
একে অপরের সামাজিক অনুষ্ঠানের দাওয়াত পেতো।
যাওয়া আসা ছিল।
ছিল দুদেশের মানুষের মধ্যে হৃদ্যতা।
দুদেশের মানুষদের ছেলে মেয়ের মধ্যে বিয়ে সাদীও হতো।
ছিল আত্মীয়তার বন্ধন।
কিন্তু আজ সেই হৃদয়ের বন্ধন আত্মীয়তার বন্ধনে ছেদ পড়েছে।
ইন্ডিয়ার এই কাঁটা তাঁরের প্রতিবন্ধকতার কারনে।
ইন্ডিয়ার সীমান্তের এই কাঁটা তাঁরের বেড়া্ দুই দেশের জনগণের স্বাভাবিক বন্ধন বিচ্ছিন্ন করেছে।
হৃদয়ের বন্ধন ও আত্মীয়তার বন্ধনকে নির্মম ভাবে বিদ্ধ করেছে।
এখন  ভারতীয় কাঁটা তাঁরের ওপাশ থেকে বাংলাদেশীয়দের টার্গেট করে ছুটে আসে গুলি।
বাংলাদেশের ছোট্ট একটি মেয়ে ফেলানী গুলিতে মরে ঝুলে থাকে কাঁটা তাঁরে মানবতাহীনতার স্বাক্ষী হয়ে।
মানবতা কাঁদতে থাকে অবিরত।
তবুও দরদহীন দত্ত হয়ে দাড়িয়ে থাকে ভারতীয় কাঁটা তাঁর
নিরীহ ছোট্ট মেয়ে ফেলানী হত্যাকারীর বিচার হয় না,ভারত মাতার রক্ষার নামে !
আর অপেক্ষায় থাকে পরবর্তী হত্যার জন্য কাঁটা তাঁরের নিষ্ঠুর সীমান্ত রক্ষী।কথিত ভারত মাতা কাঁটা তাঁরের  নিষ্ঠুর রক্ষীদের হতে তাঁর নিরীহ বাংলাদেশী  সন্তানদের রক্ষা করতে ব্যর্থ হয়।

Sunday, October 25, 2015

India, Bangladesh border fence in his hand!

 India, Bangladesh border fence in his hand!

India-Bangladesh border.
Cow climbing Bangladesh border.
Indian border fence with his hand.
Once the fence was not in his hand.
People living in border traffic was fair.
It could invite other social events.
Was going to come.
Affection between the two men.
Both men were solemnizing the marriage of the girl child.
The ties of kinship.
But the heart of the bonds of kinship ties were severed.
India due to the spines of his disability.
The spines of the people of the two countries Blockage India border has cut off the ties.
Heart ties and kinship ties were brutally stabbed.
Indian hand to his shot come out around Bangladesh's target.
The little girl shot dead hanging spines Felani insignificance of humanity witnessed.
If humanity is to continue to cry.
Still standing are given the pitiless hand of Indian
Felani innocent little girl's killer to justice is not, in the name of Mother India!
He is waiting for the hand of his brutal murder border.
India is said to be the mother of his hand to his cruel guards failed to protect the innocent Bangladeshi children.

ভারত বাংলাদেশের সীমান্তে কাঁটা তাঁরের বেড়া !

বাংলাদেশ  ভারত সীমান্ত।
বাংলাদেশ সীমান্তে গরু চড়ছে।
ভারতীয় সীমান্তে কাঁটা তাঁরের বেড়া।
একসময় এই ভারতীয় কাঁটা তাঁরের বেড়া ছিল না।
অবাদ চলাচল ছিল সীমান্তের বসবাসকারী জনগণের।
একে অপরের সামাজিক অনুষ্ঠানের দাওয়াত পেতো।
যাওয়া আসা ছিল।
ছিল দুদেশের মানুষের মধ্যে হৃদ্যতা।
দুদেশের মানুষদের ছেলে মেয়ের মধ্যে বিয়ে সাদীও হতো।
ছিল আত্মীয়তার বন্ধন।
কিন্তু আজ সেই হৃদয়ের বন্ধন আত্মীয়তার বন্ধনে ছেদ পড়েছে।
ইন্ডিয়ার এই কাঁটা তাঁরের প্রতিবন্ধকতার কারনে।
ইন্ডিয়ার সীমান্তের এই কাঁটা তাঁরের বেড়া্ দুই দেশের জনগণের স্বাভাবিক বন্ধন বিচ্ছিন্ন করেছে।
হৃদয়ের বন্ধন ও আত্মীয়তার বন্ধনকে নির্মম ভাবে বিদ্ধ করেছে।
এখন  ভারতীয় কাঁটা তাঁরের ওপাশ থেকে বাংলাদেশীয়দের টার্গেট করে ছুটে আসে গুলি।
বাংলাদেশের ছোট্ট একটি মেয়ে ফেলানী গুলিতে মরে ঝুলে থাকে কাঁটা তাঁরে মানবতাহীনতার স্বাক্ষী হয়ে।
মানবতা কাঁদতে থাকে অবিরত।
তবুও দরদহীন দত্ত হয়ে দাড়িয়ে থাকে ভারতীয় কাঁটা তাঁর
নিরীহ ছোট্ট মেয়ে ফেলানী হত্যাকারীর বিচার হয় না,ভারত মাতার রক্ষার নামে !
আর অপেক্ষায় থাকে পরবর্তী হত্যার জন্য কাঁটা তাঁরের নিষ্ঠুর সীমান্ত রক্ষী।কথিত ভারত মাতা কাঁটা তাঁরের  নিষ্ঠুর রক্ষীদের হতে তাঁর নিরীহ বাংলাদেশী  সন্তানদের রক্ষা করতে ব্যর্থ হয়।