Monday, October 12, 2015

অবৈধ প্রেম ! নারীরা কেন পরকীয়ায় জডিয়ে পড়েন ?

অবৈধ প্রেম বা পরকীয়ার বিষয়ে বিবাহিত মহিলারাও পুরুষদের চেয়ে পিছিয়ে নেই। গবেষণায় প্রমাণিত হলো এই চাঞ্চল্যকর তথ্য। স্বামীর থেকে পূর্ণ যৌন তৃপ্তি না পেলেও তাঁরা মোটেও বিবাহবিচ্ছেদের পথ মাড়ান না। বরং পরকীয়ার সম্পর্কে অবৈধ প্রেমে জড়িয়ে নিজের শারীরিক চাহিদা মিটিয়ে নিতে চান। বিবাহিত মধ্যবয়স্কা মহিলাদের শারীরিক ও মানসিক চাহিদা একটুই বেশিই হয় সে কথা বলেছেন গবেষকরা। জীবনের মধ্যগগনে এসে প্রিয় পুরুষের কাছে ধরে রাখতে চান নিজের পূর্ণ আকর্ষণ। কিন্তু স্বামী যদি তাঁর দিকে মন না দেন, বা শয্যায় চাহিদা না পূরণ করতে পারেন তখনই পরকীয়ায় জড়িয়ে পরেন মহিলারা।
ইংল্যান্ডের ইউনিভার্সিটি অফ উইনচেস্টারের পুরুষত্ব ও সেক্স স্টাডিজ বিভাগের অধ্যাপক এরিক অ্যান্ডারসন জানাচ্ছেন, ‘বিয়ে করে পরিতৃপ্ত ও শয্যায় পূর্ণ তৃপ্তি পাওয়া দুটো সম্পূর্ণ আলাদা আলাদা বিষয়। তিনে গভেষণা করে প্রমাণ পেয়েছেন যে, ৩০-৪৫ বছরের মহিলারা আরও বেশী রোম্যান্টিক এবং উত্তেজনাময় যৌন জীবনের জন্যই অবৈধ প্রেমে বা পরকীয়ায় জড়িয়ে পরেন।মি: এরিক অ্যান্ডারসন ৩০-৪৫ বছরের ১০০ জনেরও বেশি বিবাহিত মহিলাদের নিয়ে তাঁর গবেষণা চালিয়েছেন এবং এমন ফলাফল পেয়েছেন। অ্যাশলে ম্যাডিসন ডট কম নামে একটি পরকীয়া প্রেম-সংক্রান্ত ওয়েবসাইটে এসমস্ত মহিলাদের কথোপকথন টেপ-বন্দি করা হয়েছিল।কথাবার্তা বিশ্লেষন করেন গভেষকরা। তার পরই এই সিদ্ধান্তে এসেছেন গবেষকরা।

গবেষণায় ৬৫ শতাংশেরও বেশি মহিলা পরপুরুষে অবৈধ প্রেম বা পরকীয়ায় জড়িয়ে পরেছেন যৌন অতৃপ্তির কারণে। তাদের চাহিদা আরও উত্তেজনাময় ও কাঙ্খিত ছিল আবেগমথিত সেক্স। পাশাপাশি তাঁরা এও স্বীকার করেছেন, তার জন্য নতুন বিয়ে করা তাদের পক্ষে সম্ভব নয়। অ্যান্ডারসন বলছেন, বিয়ের কিছু বছর পর স্বামী ও স্ত্রীর মধ্যে যৌন সম্পর্ক আকর্ষনহীন ও ফিকে হতে শুরু করে। কিন্তু মহিলারা ফের বিয়ে করে এক্সপেরিমেন্ট করতে চান না।মি: অ্যান্ডারসন দাবি, এই গবেষণার বিষয়ের মূল সারাংশ কখনই বিবাহিত মহিলাদের অসম্মান করা নয়। বরং কি কারণে সম্পর্ক ভেঙে যায় তার একটি কারণ খুজতে গিয়ে এই বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা পাওয়া গিয়েছে ।


Monday, October 12, 2015

অবৈধ প্রেম ! নারীরা কেন পরকীয়ায় জডিয়ে পড়েন ?

অবৈধ প্রেম বা পরকীয়ার বিষয়ে বিবাহিত মহিলারাও পুরুষদের চেয়ে পিছিয়ে নেই। গবেষণায় প্রমাণিত হলো এই চাঞ্চল্যকর তথ্য। স্বামীর থেকে পূর্ণ যৌন তৃপ্তি না পেলেও তাঁরা মোটেও বিবাহবিচ্ছেদের পথ মাড়ান না। বরং পরকীয়ার সম্পর্কে অবৈধ প্রেমে জড়িয়ে নিজের শারীরিক চাহিদা মিটিয়ে নিতে চান। বিবাহিত মধ্যবয়স্কা মহিলাদের শারীরিক ও মানসিক চাহিদা একটুই বেশিই হয় সে কথা বলেছেন গবেষকরা। জীবনের মধ্যগগনে এসে প্রিয় পুরুষের কাছে ধরে রাখতে চান নিজের পূর্ণ আকর্ষণ। কিন্তু স্বামী যদি তাঁর দিকে মন না দেন, বা শয্যায় চাহিদা না পূরণ করতে পারেন তখনই পরকীয়ায় জড়িয়ে পরেন মহিলারা।
ইংল্যান্ডের ইউনিভার্সিটি অফ উইনচেস্টারের পুরুষত্ব ও সেক্স স্টাডিজ বিভাগের অধ্যাপক এরিক অ্যান্ডারসন জানাচ্ছেন, ‘বিয়ে করে পরিতৃপ্ত ও শয্যায় পূর্ণ তৃপ্তি পাওয়া দুটো সম্পূর্ণ আলাদা আলাদা বিষয়। তিনে গভেষণা করে প্রমাণ পেয়েছেন যে, ৩০-৪৫ বছরের মহিলারা আরও বেশী রোম্যান্টিক এবং উত্তেজনাময় যৌন জীবনের জন্যই অবৈধ প্রেমে বা পরকীয়ায় জড়িয়ে পরেন।মি: এরিক অ্যান্ডারসন ৩০-৪৫ বছরের ১০০ জনেরও বেশি বিবাহিত মহিলাদের নিয়ে তাঁর গবেষণা চালিয়েছেন এবং এমন ফলাফল পেয়েছেন। অ্যাশলে ম্যাডিসন ডট কম নামে একটি পরকীয়া প্রেম-সংক্রান্ত ওয়েবসাইটে এসমস্ত মহিলাদের কথোপকথন টেপ-বন্দি করা হয়েছিল।কথাবার্তা বিশ্লেষন করেন গভেষকরা। তার পরই এই সিদ্ধান্তে এসেছেন গবেষকরা।

গবেষণায় ৬৫ শতাংশেরও বেশি মহিলা পরপুরুষে অবৈধ প্রেম বা পরকীয়ায় জড়িয়ে পরেছেন যৌন অতৃপ্তির কারণে। তাদের চাহিদা আরও উত্তেজনাময় ও কাঙ্খিত ছিল আবেগমথিত সেক্স। পাশাপাশি তাঁরা এও স্বীকার করেছেন, তার জন্য নতুন বিয়ে করা তাদের পক্ষে সম্ভব নয়। অ্যান্ডারসন বলছেন, বিয়ের কিছু বছর পর স্বামী ও স্ত্রীর মধ্যে যৌন সম্পর্ক আকর্ষনহীন ও ফিকে হতে শুরু করে। কিন্তু মহিলারা ফের বিয়ে করে এক্সপেরিমেন্ট করতে চান না।মি: অ্যান্ডারসন দাবি, এই গবেষণার বিষয়ের মূল সারাংশ কখনই বিবাহিত মহিলাদের অসম্মান করা নয়। বরং কি কারণে সম্পর্ক ভেঙে যায় তার একটি কারণ খুজতে গিয়ে এই বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা পাওয়া গিয়েছে ।