Friday, August 21, 2015

Bangladesh's note`s of taka

অনেকেই জীবনে অতীতের বাংলাদেশে ব্যবহৃত টাকার নোটগুলো দেখেননি
অনেকে হয়তো কিছু দেখার সুযোগ পেয়েছেন এবং ব্যবহার করেছেনেও
সেগুলো আজ আমাদের স্মৃতি হয়ে  রয়েছে মনের পটে ।
সেই পূরানো সুখ স্মৃতি রোমন্থনের জন্য
ছবি সহ বাংলাদেশের টাকার ইতিহাস আপনাদের জন্য পেশ করা হলো।
আশা করি আপনাদের  ভাল লাগবে।
ধন্যবাদ।

এক টাকা।
 

বাংলাদেশ স্বাধীনতা লাভের পর কিছু দিন পাকিস্তানী  এই ১ রূপী প্রচলিত ছিল








 


 








পরবর্তীতে ১৯৭২ সালের ৪ঠা মার্চ বাংলাদেশী টাকার নোট বাজারে ছাড়া হয় 











 















এরপর ১৯৭৩ সালের ১৮ই ডিসেম্বর পুনরায় আরেকটি টাকার নোট ইস্যু হয়




  







পরবর্তীতে ১৯৭৯ সালের ৩রা সেপ্টেম্বর "রয়েল বেঙ্গল টাইগার"-এর জলছাপ সম্বলিত টাকার নোট ইস্যু হয়







১৯৭৫ সালে "নিকেল-কপার" দ্বারা তৈরী টাকার কয়েন ইস্যু হয়েছিল
এরপর ১৯৯৩ সালের ৯ই মে পুনরায় টাকার কয়েন ইস্যু হয় পরবর্তীতে এর আকৃতি এবং রঙ বার পরিবর্তন করা হয়



















দুই টাকা


১৯৮৮ সালের ২৯ই ডিসেম্বর এই বাজারে ছাড়া হয় 
এরপর ২০১১ সালের ৯ই আগস্ট  এই টাকা ইস্যু হয়
 

একপাশে শহীদ মিনার, অন্যপাশে গাছের ডালে বসে থাকা দোয়েল খুব সাধারন এক দৃশ্য কোথায় দেখছেন মনে করেনমনে পরেছে? হ্যা আমি দুই টাকার বাংলাদেশি নোটের কথা বলছিএক জরিপে সবেচেয়ে সুন্দর নোট হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে বাংলাদেশের টাকাদ্বিতীয় স্থানে আছে সাও টোমের (São Tomé and Príncipe) ৫০ হাজার মূল্যমানের ডোবরা নোট তৃতীয় চতুর্থ স্থানে আছে যথাক্রমে বাহামার ডলারের নোট এবং বাহরাইনের দিনারের নোট জরিপটি পরিচালনা করেছে রাশিয়ার একটি অনলাইন বিনোদন কেন্দ্র

তালিকায় পঞ্চম স্থানে আছে জর্জিয়ার ১০ লরি নোট, ষষ্ঠ স্থানে ১০ হংকং ডলার, সপ্তম স্থানে ১০ কুক আইল্যান্ড ডলার, অষ্টম স্থানে ৫০ ইসরাইলি শেকেল, নবম স্থানে ২০ হাজার আইল্যান্ড ক্রোনা নোট এবং দশম স্থানে আছে ৫০ ফেরো আইল্যান্ড ক্রোনার্স নোট এছাড়া তালিকায় একাদশ থেকে
বিংশ অবস্থানে আছে নিউজিল্যান্ড, রোমানিয়া, মালদ্বীপ, সিঙ্গাপুর, কমোরোস, ফ্রেঞ্চ পলিনেশিয়া, সুইজারল্যান্ড, সুইডেন, জ্যামাইকা এবং জাপানের নোট






২০১৩ সালের ৩ এপ্রিল থেকে  বঙ্গবন্ধুর ছবি  সহ ২ টাকা ইস্যু হয় ।
















২০০৪ সালে "স্টীল"-এর তৈরী টাকার কয়েন ইস্যু হয়





পাঁচ টাকা





১৯৭২ সালের ৪ঠা মার্চ প্রথম টাকার নোট ইস্যু হয়















পরবর্তীতে ১৯৭৩ সালের ১লা সেপ্টেম্বর এবং ১৯৭৪ সালে "বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান" - এর ছবি সম্বলিত আরো দু'টি নোট ইস্যু হয়















১৯৭৬ সালের ১১ই অক্টোবর "তারা মসজিদ"-এর ছবি সম্বলিত নোট ইস্যু হয় 














১৯৭৮ সালের ২রা মে "তারা মসজিদ"-এর পরিবর্তে "কুসুম বাগ মসজিদের মেহরাব"-এর ছবি সম্বলিত নোট ইস্যু পার্থক্য হল নোটটিতে ৩মিমি চওড়া নিরাপত্তা সূতা ব্যবহার করা হয় 










২০০৬ সালের ৮ই অক্টোবর এই নোটটি ইস্যু হয়











এরপর ২০১১ সালের ৯ই আগস্ট  এই নোটটি ইস্যু হয়













১৯৯৩ সালের ১লা অক্টোবর টাকার কয়েন ইস্যু হয়





  

দশ টাকা




১৯৭২ সালের ৪ঠা মার্চ প্রথম ১০ টাকার নোট বাজারে ছাড়া  হয় ।












১৯৭২ সালের ২রা জুন এবং ১৯৭৩ সালের ১৫ই অক্টোবর নোটটি ইস্যু হয়।









১৯৭৩ সালের ১৫ই অক্টোবর নোটটি ইস্যু হয়।













১৯৭৬ সালের ১১ই অক্টোবর "তারা মসজিদ"-এর ছবি সম্বলিত নোট ইস্যু হয়।













পরবর্তীতে ১৯৭৮ সালের ৩রা আগস্ট এবং ১৯৮২ সালের ৩রা সেপ্টেম্বর "আতিয়া জামে মসজিদ" -এর ছবি সম্বলিত নোট ইস্যু হয়।













১৯৭৮ সালের ৩রা আগস্ট এবং ১৯৮২ সালের ৩রা সেপ্টেম্বর "আতিয়া জামে মসজিদ" -এর ছবি সম্বলিত নোট ইস্যু হয়।











১৯৯৭ সালের ১১ই ডিসেম্বর "লালবাগ কেল্লা মসজিদ"-এর ছবি সম্বলিত নোট ইস্যু হয় ।















২০০০ সালের ১৪ই ডিসেম্বর অস্ট্রেলিয়া থেকে ১০ টাকার পলিমার নোট তৈরী করে আনা হয় যা বাংলাদেশের জন্য ব্যবহারের অনুপযোগী।












২০০২ সালের ৭ই জানুয়ারী  এই ১০ টাকার আরেকটি নোট ইস্যু হয়।













বিশ টাকা



১৯৭৯ সালের ২০ই আগস্ট প্রথম ২০ টাকার নোট বাজারে ছাড়া হয়।











পরবর্তীতে হলগ্রাফিক নিরাপত্তা সংযুক্ত করে ২০০২ সালের ১৩ জুলাই পুনরায় আগের নোটটি ইস্যু হয়।


 







২০১২ সালের ৭ই  মার্চ ২০ টাকার এই নোটটি ইস্যু হয় ।

 

 

 

 


 

পঞ্চাশ টাকা

 

 


১৯৭৬ সালের ১লা মার্চ প্রথম ৫০ টাকার নোট বাজারে ছাড়া হয় ।

 





 ১৯৭৯ সালের ৪ঠা "তারা মসজিদ"-এর পরিবর্তে "ষাট গুম্বুজ মসজিদ"-এর ছবি সম্বলিত নোট ইস্যু হয়।

 

 

 

১৯৮৭ সালের ২৪ই আগস্ট প্রথমবারের মত "স্মৃতিসৌধ"-এর ছবি সম্বলিত নোট ইস্যু হয়।

 

 

 

 

 

২০০৩ সালের ১২ই মে ৫৯ টাকার নোট ইস্যু হয় ।

২০১২ সালের ৭ই  মার্চ ৫০ টাকার আরেকটি নোট ইস্যু হয় ।


 

 

 

একশত টাকা

 

 

 

১৯৭২ সালের ৪ঠা মার্চ প্রথম ১০০ টাকার নোট বাজারে ছাড়া হয় ।

 

 

 

 

১৯৭২ সালের ১লা সেপ্টেম্বর নোট ইস্যু হয় ।

 

 

 

 

১৯৭৬ সালের ১লা মার্চ "তারা মসজিদ"-এর ছবি সম্বলিত  নোট ইস্যু হয়।

 

 

 

 

 

১৯৭৭ সালের ১৫ই ডিসেম্বর সম্পূর্ণ নতুন ডিজাইনের ১০০ টাকার নোট ইস্যু হয়।

 

 

 

২০০১ সালের ১৫ই মার্চ optical variable ink (ovi) ব্যবহার করে নোট ইস্যু হয়।

 

 

 

২০০২ সালের ৫ই জুন "জাতীয় স্মৃতিসৌধ"-এর ছবি সম্বলিত নোট ইস্যু হয়।

 

 

 

২০০৫ সালের ২৮শে জুলাই পূর্বের ১০০টাকার "100" শব্দটিকে সোনালী রঙে পরিবর্তন করা হয়।

 

 


এরপর ২০১১ সালের ৯ই আগস্ট  এই নোটটি ইস্যু হয়।

 

 

 

 

 

 

পাঁচশত টাকা

 

১৯৭৬ সালের ১৫ই ডিসেম্বর প্রথম ৫০০ টাকার নোট বাজারে ছাড়া হয়।

 

 

পরবর্তীতে ডিজাইনে ব্যপক পরিবর্তন এনে ১৯৯৮ সালের ২রা জুলাই এই নোটটি ইস্যু হয়।

 

 

 

২০০০ সালের ১০ই আগস্ট এই নোট ইস্যু হয়।

 

 

 

 

২০০২ সালের ১৭ই জুলাই "জাতীয় স্মৃতিসৌধ"-এর ছবি সম্বলিত নোট ইস্যু হয়

 

 

 

 

২০০৪ সালের ২৪ই অক্টোবর পূর্বের নোটের "৫০০" এর পরিবর্তে "পাঁচশত টাকা" শব্দে optical variable ink (ovi) ব্যবহার করে নোট ইস্যু হয়।

 

 

 

 

এরপর ২০১১ সালের ৯ই আগস্ট  এই নোটটি ইস্যু হয়।

 

 

 

 

 

 

এক হাজার টাকা

 

 বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় মানের নোট নোটটি ২০০৮সালের ২৭শে অক্টোবর বাজারে ছাড়া হয় এর সামনের অংশে শহীদ মিনার এবং পেছনের অংশে কার্জন হলের ছবি রয়েছে এতে মোট ১১ টি নিরাপত্তা ব্যবস্থা রয়েছে

 

এরপর ২০১১ সালের ৯ই আগস্ট  এই নোটটি ইস্যু হয়।

 

 

 

 



শেষ !!

Friday, August 21, 2015

Bangladesh's note`s of taka

অনেকেই জীবনে অতীতের বাংলাদেশে ব্যবহৃত টাকার নোটগুলো দেখেননি
অনেকে হয়তো কিছু দেখার সুযোগ পেয়েছেন এবং ব্যবহার করেছেনেও
সেগুলো আজ আমাদের স্মৃতি হয়ে  রয়েছে মনের পটে ।
সেই পূরানো সুখ স্মৃতি রোমন্থনের জন্য
ছবি সহ বাংলাদেশের টাকার ইতিহাস আপনাদের জন্য পেশ করা হলো।
আশা করি আপনাদের  ভাল লাগবে।
ধন্যবাদ।

এক টাকা।
 

বাংলাদেশ স্বাধীনতা লাভের পর কিছু দিন পাকিস্তানী  এই ১ রূপী প্রচলিত ছিল








 


 








পরবর্তীতে ১৯৭২ সালের ৪ঠা মার্চ বাংলাদেশী টাকার নোট বাজারে ছাড়া হয় 











 















এরপর ১৯৭৩ সালের ১৮ই ডিসেম্বর পুনরায় আরেকটি টাকার নোট ইস্যু হয়




  







পরবর্তীতে ১৯৭৯ সালের ৩রা সেপ্টেম্বর "রয়েল বেঙ্গল টাইগার"-এর জলছাপ সম্বলিত টাকার নোট ইস্যু হয়







১৯৭৫ সালে "নিকেল-কপার" দ্বারা তৈরী টাকার কয়েন ইস্যু হয়েছিল
এরপর ১৯৯৩ সালের ৯ই মে পুনরায় টাকার কয়েন ইস্যু হয় পরবর্তীতে এর আকৃতি এবং রঙ বার পরিবর্তন করা হয়



















দুই টাকা


১৯৮৮ সালের ২৯ই ডিসেম্বর এই বাজারে ছাড়া হয় 
এরপর ২০১১ সালের ৯ই আগস্ট  এই টাকা ইস্যু হয়
 

একপাশে শহীদ মিনার, অন্যপাশে গাছের ডালে বসে থাকা দোয়েল খুব সাধারন এক দৃশ্য কোথায় দেখছেন মনে করেনমনে পরেছে? হ্যা আমি দুই টাকার বাংলাদেশি নোটের কথা বলছিএক জরিপে সবেচেয়ে সুন্দর নোট হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে বাংলাদেশের টাকাদ্বিতীয় স্থানে আছে সাও টোমের (São Tomé and Príncipe) ৫০ হাজার মূল্যমানের ডোবরা নোট তৃতীয় চতুর্থ স্থানে আছে যথাক্রমে বাহামার ডলারের নোট এবং বাহরাইনের দিনারের নোট জরিপটি পরিচালনা করেছে রাশিয়ার একটি অনলাইন বিনোদন কেন্দ্র

তালিকায় পঞ্চম স্থানে আছে জর্জিয়ার ১০ লরি নোট, ষষ্ঠ স্থানে ১০ হংকং ডলার, সপ্তম স্থানে ১০ কুক আইল্যান্ড ডলার, অষ্টম স্থানে ৫০ ইসরাইলি শেকেল, নবম স্থানে ২০ হাজার আইল্যান্ড ক্রোনা নোট এবং দশম স্থানে আছে ৫০ ফেরো আইল্যান্ড ক্রোনার্স নোট এছাড়া তালিকায় একাদশ থেকে
বিংশ অবস্থানে আছে নিউজিল্যান্ড, রোমানিয়া, মালদ্বীপ, সিঙ্গাপুর, কমোরোস, ফ্রেঞ্চ পলিনেশিয়া, সুইজারল্যান্ড, সুইডেন, জ্যামাইকা এবং জাপানের নোট






২০১৩ সালের ৩ এপ্রিল থেকে  বঙ্গবন্ধুর ছবি  সহ ২ টাকা ইস্যু হয় ।
















২০০৪ সালে "স্টীল"-এর তৈরী টাকার কয়েন ইস্যু হয়





পাঁচ টাকা





১৯৭২ সালের ৪ঠা মার্চ প্রথম টাকার নোট ইস্যু হয়















পরবর্তীতে ১৯৭৩ সালের ১লা সেপ্টেম্বর এবং ১৯৭৪ সালে "বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান" - এর ছবি সম্বলিত আরো দু'টি নোট ইস্যু হয়















১৯৭৬ সালের ১১ই অক্টোবর "তারা মসজিদ"-এর ছবি সম্বলিত নোট ইস্যু হয় 














১৯৭৮ সালের ২রা মে "তারা মসজিদ"-এর পরিবর্তে "কুসুম বাগ মসজিদের মেহরাব"-এর ছবি সম্বলিত নোট ইস্যু পার্থক্য হল নোটটিতে ৩মিমি চওড়া নিরাপত্তা সূতা ব্যবহার করা হয় 










২০০৬ সালের ৮ই অক্টোবর এই নোটটি ইস্যু হয়











এরপর ২০১১ সালের ৯ই আগস্ট  এই নোটটি ইস্যু হয়













১৯৯৩ সালের ১লা অক্টোবর টাকার কয়েন ইস্যু হয়





  

দশ টাকা




১৯৭২ সালের ৪ঠা মার্চ প্রথম ১০ টাকার নোট বাজারে ছাড়া  হয় ।












১৯৭২ সালের ২রা জুন এবং ১৯৭৩ সালের ১৫ই অক্টোবর নোটটি ইস্যু হয়।









১৯৭৩ সালের ১৫ই অক্টোবর নোটটি ইস্যু হয়।













১৯৭৬ সালের ১১ই অক্টোবর "তারা মসজিদ"-এর ছবি সম্বলিত নোট ইস্যু হয়।













পরবর্তীতে ১৯৭৮ সালের ৩রা আগস্ট এবং ১৯৮২ সালের ৩রা সেপ্টেম্বর "আতিয়া জামে মসজিদ" -এর ছবি সম্বলিত নোট ইস্যু হয়।













১৯৭৮ সালের ৩রা আগস্ট এবং ১৯৮২ সালের ৩রা সেপ্টেম্বর "আতিয়া জামে মসজিদ" -এর ছবি সম্বলিত নোট ইস্যু হয়।











১৯৯৭ সালের ১১ই ডিসেম্বর "লালবাগ কেল্লা মসজিদ"-এর ছবি সম্বলিত নোট ইস্যু হয় ।















২০০০ সালের ১৪ই ডিসেম্বর অস্ট্রেলিয়া থেকে ১০ টাকার পলিমার নোট তৈরী করে আনা হয় যা বাংলাদেশের জন্য ব্যবহারের অনুপযোগী।












২০০২ সালের ৭ই জানুয়ারী  এই ১০ টাকার আরেকটি নোট ইস্যু হয়।













বিশ টাকা



১৯৭৯ সালের ২০ই আগস্ট প্রথম ২০ টাকার নোট বাজারে ছাড়া হয়।











পরবর্তীতে হলগ্রাফিক নিরাপত্তা সংযুক্ত করে ২০০২ সালের ১৩ জুলাই পুনরায় আগের নোটটি ইস্যু হয়।


 







২০১২ সালের ৭ই  মার্চ ২০ টাকার এই নোটটি ইস্যু হয় ।

 

 

 

 


 

পঞ্চাশ টাকা

 

 


১৯৭৬ সালের ১লা মার্চ প্রথম ৫০ টাকার নোট বাজারে ছাড়া হয় ।

 





 ১৯৭৯ সালের ৪ঠা "তারা মসজিদ"-এর পরিবর্তে "ষাট গুম্বুজ মসজিদ"-এর ছবি সম্বলিত নোট ইস্যু হয়।

 

 

 

১৯৮৭ সালের ২৪ই আগস্ট প্রথমবারের মত "স্মৃতিসৌধ"-এর ছবি সম্বলিত নোট ইস্যু হয়।

 

 

 

 

 

২০০৩ সালের ১২ই মে ৫৯ টাকার নোট ইস্যু হয় ।

২০১২ সালের ৭ই  মার্চ ৫০ টাকার আরেকটি নোট ইস্যু হয় ।


 

 

 

একশত টাকা

 

 

 

১৯৭২ সালের ৪ঠা মার্চ প্রথম ১০০ টাকার নোট বাজারে ছাড়া হয় ।

 

 

 

 

১৯৭২ সালের ১লা সেপ্টেম্বর নোট ইস্যু হয় ।

 

 

 

 

১৯৭৬ সালের ১লা মার্চ "তারা মসজিদ"-এর ছবি সম্বলিত  নোট ইস্যু হয়।

 

 

 

 

 

১৯৭৭ সালের ১৫ই ডিসেম্বর সম্পূর্ণ নতুন ডিজাইনের ১০০ টাকার নোট ইস্যু হয়।

 

 

 

২০০১ সালের ১৫ই মার্চ optical variable ink (ovi) ব্যবহার করে নোট ইস্যু হয়।

 

 

 

২০০২ সালের ৫ই জুন "জাতীয় স্মৃতিসৌধ"-এর ছবি সম্বলিত নোট ইস্যু হয়।

 

 

 

২০০৫ সালের ২৮শে জুলাই পূর্বের ১০০টাকার "100" শব্দটিকে সোনালী রঙে পরিবর্তন করা হয়।

 

 


এরপর ২০১১ সালের ৯ই আগস্ট  এই নোটটি ইস্যু হয়।

 

 

 

 

 

 

পাঁচশত টাকা

 

১৯৭৬ সালের ১৫ই ডিসেম্বর প্রথম ৫০০ টাকার নোট বাজারে ছাড়া হয়।

 

 

পরবর্তীতে ডিজাইনে ব্যপক পরিবর্তন এনে ১৯৯৮ সালের ২রা জুলাই এই নোটটি ইস্যু হয়।

 

 

 

২০০০ সালের ১০ই আগস্ট এই নোট ইস্যু হয়।

 

 

 

 

২০০২ সালের ১৭ই জুলাই "জাতীয় স্মৃতিসৌধ"-এর ছবি সম্বলিত নোট ইস্যু হয়

 

 

 

 

২০০৪ সালের ২৪ই অক্টোবর পূর্বের নোটের "৫০০" এর পরিবর্তে "পাঁচশত টাকা" শব্দে optical variable ink (ovi) ব্যবহার করে নোট ইস্যু হয়।

 

 

 

 

এরপর ২০১১ সালের ৯ই আগস্ট  এই নোটটি ইস্যু হয়।

 

 

 

 

 

 

এক হাজার টাকা

 

 বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় মানের নোট নোটটি ২০০৮সালের ২৭শে অক্টোবর বাজারে ছাড়া হয় এর সামনের অংশে শহীদ মিনার এবং পেছনের অংশে কার্জন হলের ছবি রয়েছে এতে মোট ১১ টি নিরাপত্তা ব্যবস্থা রয়েছে

 

এরপর ২০১১ সালের ৯ই আগস্ট  এই নোটটি ইস্যু হয়।

 

 

 

 



শেষ !!